ঢাকা১৯শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ১২ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি ৪ঠা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থ বানিজ্য
  2. আইন আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আবহাওয়া
  5. ইসলাম
  6. এভিয়েশন
  7. ক্যাম্পাস
  8. খেলা
  9. জব মার্কেট
  10. জাতীয়
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. দেশবাংলা
  13. বিনোদন
  14. রাজনীতি
  15. লাইফস্টাইল
বিজ্ঞাপন
আজকের সর্বশেষ সবখবর

আওয়ামী সরকারের কাছে দেশের ১৮ কোটি জনগন যেনো সংখ্যালঘু : কেন্দ্রীয় নেতা জয়ন্ত কুমার

জনবার্তা প্রতিবেদন
জুন ২৯, ২০২৪ ৫:৩২ অপরাহ্ণ
Link Copied!

বিএনপি’র কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক বাবু জয়ন্ত কুমার কুন্ডু বলেছেন, অবৈধ শেখ হাসিনা সরকার সীমাহীন লুটপাটে বাংলাদেশের অবস্থা দেউলিয়া প্রায়। জনগনের মৌলিক অধিকার ও স্বাধীনতা হরণ করে পাশ্ববর্তী ভীনদেশীদের প্রেসক্রিপশনে দেশ পরিচালনা ব্যর্থ ফ্যাসিষ্ট সরকারের হাতে দেশের সার্বিক সার্বভৌমত্ব হারাতে বসেছে। জনগনের সামনে তথ্যভিত্তিক এসব চিত্র তুলে ধরায় বিএনপিকে শেখ হাসিনার আজ্ঞাবহ আদালত ও প্রশাসন দমন-পীড়নের ঘৃণ্য বর্বরোচিত ইতিহাস রচনা করেছে আওয়ামী লীগ। এতে শেখ হাসিনা সরকারের শেষ রক্ষা হবে না। সর্বকালের ঘৃণ্য বর্বরোচিত ইতিহাসের মাফিয়া রানী হিসেবে শেখ হাসিনার নাম চিরদিন স্মরণ রাখবে বাংলাদেশ। অবৈধ সরকারকে ক্ষমতায় টিকিয়ে রাখতে সহায়তাকারী প্রশাসনের অসাধু কর্মকর্তারা হাজার হাজার কোটি টাকার মালিক হয়েছেন। আওয়ামী সরকারের কাছে দেশের ১৮ কোটি মানুষ যেনো সংখ্যালঘুতে পরিণত হয়েছে। তাই ঐক্যবদ্ধভাবে মাফিয়া সরকারের পতন ত্যাগ নিশ্চিত করে জনগনকে বাংলাদেশের সার্বভৌমত্ব ফিরিয়ে দিতে হবে। ভোটাধিকার নিশ্চিত করতে হবে। তবেই বন্দীদশা থেকে মুক্তি পাবেন বাংলাদেশের প্রথম নারী মুক্তিযোদ্ধা তিনবারের সাবেক সফল প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া।

শনিবার (২৯ জুন) বেলা সাড়ে ১১টায় নগরীর কে.ডি ঘোষ রোডস্থ দলীয় কার্যালয়ে খুলনা জেলা বিএনপি’র প্রস্তুতি সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। জেলা বিএনপি’র আহবায়ক আমীর এজাজ খানের সভাপতিত্বে সূচনা বক্তৃতা করেন সদস্য সচিব এসএম মনিরুল হাসান বাপ্পী। বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও বিদেশে সুচিকিৎসার দাবিতে আগামী ১ জুন দলীয় কার্যালয়ের সামনে খুলনা বিএনপি’র বিক্ষোভ সমাবেশ সফলে অনুষ্ঠিত প্রস্তুতি সভায় জেলা বিএনপি নেতৃবৃন্দ, অঙ্গ সংগঠনের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ ও উপজেলা/ পৌরসভার আহবায়ক/সভাপতি, সদস্য সচিব/সাধারণ সম্পাদকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

বিএনপি’র কেন্দ্রীয় নেতা জয়ন্ত কুমার কুন্ডু আরও বলেন, গেল কোরবানীতে মাত্র একটি ছাগল দেখে; আরও কত শত ছাগল রয়েছে অগোচরেই। গেল ১৫ বছরে খেয়ে নাদুস-নুদুস হওয়া সব ছাগলগুলোকে জাতির সামনে হাজির করতে হবে। বাংলাদেশের মাটিতেই আওয়ামী ছাগলগুলোর বিচারের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। এজন্য প্রয়োজন বিএনপি’র ইস্পাত কঠিন ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন। তাই আগামীর রাষ্ট্রনায়ক তারেক রহমানের আহবান- সকল ভেদাভেদ ভুলে ঘর গোছাতে হবে।

সভায় গৃহীত গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তের মধ্যে রয়েছে- কমিটি না হওয়া জেলার সকল ইউনিয়নে শিগগরিই কমিটি পুনর্গঠন করতে হবে। কয়রা উপজেলা বিএনপি কমিটি দিতে ব্যর্থ হলে, জেলা বিএনপি একটি টীম করে কয়রার সাতটি ইউনিয়নে বিএনপি কমিটি পুনর্গঠনের নির্দেশনা দেন কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক বাবু জয়ন্ত কুমার কুন্ডু। আগামী ১ জুলাই বিক্ষোভ সমাবেশ সফলে সর্বস্তরের নেতাকর্মীর বিপুল জমায়েত নিশ্চিত করতে সকলকে দায়িত্ব পালন করতে হবে। এছাড়া প্রবীন বিএনপি নেতা চৌধুরী কওসার আলী, মেজবাউল আলম ও খান সাইদুজ্জামানের আশু সুস্থ্যতা কামনা করেন নেতৃবৃন্দ।

জেলা বিএনপি’র যুগ্ম-আহবায়ক আশরাফুল আলম নান্নুর সঞ্চালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন ও উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপি’র যুগ্ম-আহবায়ক শেখ আবু হোসেন বাবু, খান জুলফিকার আলী জুলু, সাইফুর রহমান মিন্টু, এসএ রহমান বাবুল, মোল্লা খায়রুল ইসলাম, মোঃ রকিব মল্লিক, মোস্তফাউল বারী লাভলু, মোল্লা মোশাররফ হোসেন মফিজ, অধ্যাপক মনিরুল হক বাবুল, শেখ তৈয়বুর রহমান ও এনামুল হক সজল, ডাঃ আব্দুল মজিদ, ইলিয়াস হোসেন মল্লিক, মোঃ হাফিজুর রহমান, আনিছুর রহমান, এসএম মুর্শিদুর রহমান লিটন, নাজমুস সাকির পিন্টু, খন্দকার ফারুক হোসেন, সরোয়ার হোসেন, সরদার আবদুল মালেক, রাহাত আলী লাচ্চু, মনির হাসান টিটু, শেখ আবুল বাশার, নুরুল আমীন বাবুল, শাহাদাত হোসেন ডাবলু, হেলাল উদ্দিন, জাফরি নেওয়াজ চন্দন, শামসুল বারিক পান্না, সেলিম রেজা লাকী, মোল্লা সাইফুর রহমান, আব্দুল মান্নান খান, মোজাফফার হোসেন, বিকাশ মিত্র, মোঃ জাবেদ মল্লিক, হাবিবুর রহমান, আতাউর রহমান রনু, মোল্লা কবির হোসেন, এ্যাড. তসলিমা খাতুন ছন্দা, খান ইসমাঈল হোসেন, জসিম উদ্দিন লাবু, আজাদ আমীন, আব্দুল মান্নান মিস্ত্রি ও গোলাম মোস্তফা তুহিন। শুরুতেই কোরআন তেলোয়াত করেন হাফেজ মোঃ জাহিদুল ইসলাম।।