ঢাকা১৯শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ১২ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি ৪ঠা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থ বানিজ্য
  2. আইন আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আবহাওয়া
  5. ইসলাম
  6. এভিয়েশন
  7. ক্যাম্পাস
  8. খেলা
  9. জব মার্কেট
  10. জাতীয়
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. দেশবাংলা
  13. বিনোদন
  14. রাজনীতি
  15. লাইফস্টাইল
বিজ্ঞাপন
আজকের সর্বশেষ সবখবর

কোটা আন্দোলনে আসতে বাধার অভিযোগ ঢাবি ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে

জনবার্তা প্রতিবেদন
জুলাই ৪, ২০২৪ ১:১৯ অপরাহ্ণ
Link Copied!

সরকারি চাকরিতে কোটার বিরোধিতা করে ঘোষিত কর্মসূচিতে আসতে বাধা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে। হলগুলোর গেট ও রিডিং রুমে জড়ো হওয়া শিক্ষার্থীদের আসতে দেওয়া হচ্ছে না বলে অনেক শিক্ষার্থী অভিযোগ করেছেন। তবে এমন অভিযোগ অস্বীকার করেছে ঢাবি ছাত্রলীগ। সংগঠনটির দাবি কোনো শিক্ষার্থীকে কর্মসূচিতে অংশ নিতে বাধা দিচ্ছে না তারা।

২০১৮ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশে সরকারি চাকরিতে ৫৬ শতাংশ কোটা প্রচলিত ছিল। তবে ওই বছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ব্যাপক কোটাবিরোধী আন্দোলন হয়।

তার প্রেক্ষিতে নবম থেকে ত্রয়োদশ গ্রেড পর্যন্ত চাকরির ক্ষেত্রে কোটা ব্যবস্থা পুরোপুরি বাতিল করে দেয় সরকার। তার আগে এসব পদে চালু থাকা কোটার ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধার সন্তান এবং তাদের নাতি-নাতনিদের জন্য সংরক্ষিত ছিল।

এর বাইরে নারীদের জন্য ১০ শতাংশ, অনগ্রসর জেলার বাসিন্দাদের জন্য ১০ শতাংশ, ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর জন্য ৫ শতাংশ আর প্রতিবন্ধীদের জন্য এক শতাংশ আসন থাকত।

মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের এক রিটে জারি করা রুলের চূড়ান্ত শুনানি শেষে গত ৫ জুন কোটা পুনর্বহালের আদেশ দেন বিচারপতি কে এম কামরুল কাদের ও বিচারপতি খিজির হায়াতের হাইকোর্ট বেঞ্চ।

উচ্চ আদালতের এমন আদেশের পর আবারও ফুঁসে ওঠেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। কোটা বাতিলের দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের বেশ কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ করেন তারা।

উচ্চ আদালতের রায় স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষ আপিল বিভাগে আবেদন করেছিল। হাইকোর্টের রায় বহাল থাকবে কি না, আজ সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ সে বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেওয়ার কথা থাকায় শিক্ষার্থীরা সেদিকে তাকিয়ে ছিলেন। রায় পক্ষে না এলে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয় শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে। এজন্য বৃহস্পতিবার শিক্ষার্থীরা খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে ঢাবিতে জড়ো হতে চাইলে একাধিক হলে অনেক শিক্ষার্থীকে আসতে ছাত্রলীগ বাধা দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়।

কয়েকজন শিক্ষার্থী জানান, বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) সকাল ১১টায় কোটা আন্দোলনের মিছিল হওয়ার কথা থাকায় প্রোগ্রামের অজুহাত দিয়ে মিছিলে অংশ নিতে বাধা দেয় ছাত্রলীগ।

বিজয় একাত্তর, সূর্যসেন ও জসিম উদ্দিন হল থেকে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা কর্মসূচিতে অংশ নিতে বাধা দিয়েছেন বলে কয়েকজন শিক্ষার্থী অভিযোগ করেছেন। হলে মাইক নিয়ে কোটা আন্দোলনকারীরা প্রচারণা করতে গেলে তাদের হল থেকে বের করে দেওয়ারও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে জসিম উদ্দিন হলের এক শিক্ষার্থী জানান, ‘আমাদের সাদ্দাম এবং সৈকত গ্রুপের ক্যান্ডিডেটরা বাধা দিচ্ছে। চারতলায় আমাদের আটকে রেখেছে। বের হতে দিচ্ছে না।’

এফ রহমান হলের এক শিক্ষার্থী জানান, ‘এখানে কয়েকজন কোটাবিরোধী আন্দোলনকারী এসে হ্যান্ডমাইকে আমাদের ডাকতে আসেন। কিন্তু তাদের হল থেকে বের করে দেয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।’

সূর্যসেন হলেও কয়েকজন শিক্ষার্থীকে আটকে রাখার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিজয় একাত্তর হলেও বাধা দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

তবে শিক্ষার্থীদের এমন অভিযোগ সত্য নয় বলে জানিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তানভীর হাসান সৈকত। ঢাকা মেইলকে তিনি বলেন, ‘এসব মিথ্যা বানোয়াট। যারা কোটাবিরোধী আন্দোলনে যাওয়ার তারা সেখানে গেছে। আর যাদের মধুর ক্যান্টিনে যাওয়ার কথা তারা সেখানে গেছে।’

শিক্ষার্থীদের অভিযোগের বিষয়ে জানতে ঢাবি ছাত্রলীগ সভাপতি সাদ্দাম হোসেনকে কল দেওয়া হলেও তিনি ফোন ধরেননি।