ঢাকা১৪ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ৭ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি ৩০শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থ বানিজ্য
  2. আইন আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আবহাওয়া
  5. ইসলাম
  6. এভিয়েশন
  7. ক্যাম্পাস
  8. খেলা
  9. জব মার্কেট
  10. জাতীয়
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. দেশবাংলা
  13. বিনোদন
  14. রাজনীতি
  15. লাইফস্টাইল
বিজ্ঞাপন
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বিএনপির গুগলিতে আ.লীগ বোল্ড আউট হয়েছে: মির্জা ফখরুল

জনবার্তা প্রতিবেদন
জুলাই ৩১, ২০২৩ ৬:২৬ অপরাহ্ণ
Link Copied!

বিএনপির গুগলিতে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ বোল্ড আউট হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। আজ সোমবার (৩১ জুলাই) রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এক জনসমাবেশে তিনি এ কথা বলেন। দেশব্যাপী কর্মসূচির অংশ হিসেবে ঢাকায় কেন্দ্রীয়ভাবে এই সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘গুগলিতে ব্যাটসম্যান যেমন কিছু বুঝে ওঠার আগে বোল্ড আউট হয়ে যায়, বিএনপির দুই দিনের কর্মসূচিতে (২৮ ও ২৯ জুলাই) আওয়ামী লীগের অবস্থা একই হয়েছে। বিএনপির গুগলিতে আওয়ামী লীগ বোল্ড আউট হয়েছে।’

সমাবেশে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, ‘আমাদের নেতা কর্মীরা কাপুরুষ নন। গ্রেপ্তার করেন, লাভ হবে না। আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে আন্দোলন বন্ধ হবে না। এই সরকারও টিকে থাকতে পারবে না, হাসিনার গদি চুরমার হয়ে ভেঙে পড়বে।’

জনগণ শপথ নিয়েছে, এ সরকারের পতন না হওয়া পর্যন্ত কেউ ঘরে যাবে না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস।

তিনি বলেন, গ্রেফতার করছেন করেন, আমরা ভয় পাই না, বিএনপি কাপুরুষের দল নয়। আজ নেতাকর্মীরা বাজার করতে গেলে গ্রেফতার করা হচ্ছে, মসজিদে নামাজ পড়তে গেলে গ্রেফতার করা হচ্ছে। কোনো অত্যাচারী শাসক টিকতে পারেনি। আপনারাও পারবেন না।

এ বিএনপি নেতা বলেন, আজ জেলখানায় নেতাকর্মীরা অসুস্থ। আরও গ্রেফতার করা হচ্ছে। তাদের কোথায় রাখবেন? যতই অত্যাচার করেন না কেন, আন্দোলন চলবে। জনগণ শপথ নিয়েছে, এ সরকারের পতন না হওয়া পর্যন্ত কেউ ঘরে যাবে না।

আব্বাস বলেন, গত ১৫ বছর অনেক আন্দোলন করেছি। অনেক রক্ত ঝরেছে। আমরা গণমানুষের দাবিতে আন্দোলন করছি। ২৮ তারিখের সমাবেশ দেখে সরকারের মাথা নষ্ট হয়ে গেছে। আমরা বলিনি ঢাকা অবরোধ করবো, বলেছি প্রবেশমুখে শান্তিপূর্ণ অবস্থান কর্মসূচি করবো। কিন্তু সরকার কী করলো! পেটুয়া পুলিশ বাহিনী এবং সন্ত্রাসীদের দ্বারা নারকীয় হামলা করা হলো।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী তিনি বলেন, ২৯ জুলাই বিএনপির শান্তিপূর্ণ অবস্থান কর্মসূচিতে হকিস্টিক, রামদা, হাতুড়ি ও অস্ত্র নিয়ে হামলা করে আওয়ামী লীগ সন্ত্রাসী দল। দেশকে অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত করার ষড়যন্ত্র করছে সরকার।

খসরু বলেন, বাংলাদেশের নেতৃত্ব কে দেবে সেটা আদালত, প্রশাসন বা সরকারি কর্মকর্তার সিদ্ধান্তে হবে না। তারেক রহমানের ব্যাপারে গত ২৮ তারিখ বাংলাদেশের জনগণ সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তারা তারেক রহমানের নেতৃত্ব মেনে নিয়েছে।

তিনি বলেন, সারা পৃথিবীর মানুষ অধিকার আদায়ে লড়াই সংগ্রাম করেছে রাস্তায় নেমে। রাস্তায় নামা অসাংবিধানিক, বেআইনি নয়। আন্দোলন রাস্তায়ই হবে, কোনো বাধা এলে লড়াই হবে, প্রতিরোধ হবে।

খসরু বলেন, সরকার পতনের আন্দোলন সরকারের কাছ থেকে অনুমতি নিয়ে করতে হবে!! এটি হাস্যকর। আর কোনো অনুমতি নয়, জনগণই আমাদের অনুমতি দিয়ে দিয়েছে। কারণ, ভোটারবিহীন সরকারকে হঠাতে আজ ১৮ কোটি মানুষ সংগ্রামে আছেন।

আন্দোলন করতে গিয়ে প্রয়োজনে জীবন চলে যাবে তারপরও আপস করব না বলে জানিয়েছেন বিএনপির চেয়াপারসনের উপদেষ্টা ও ঢাকা মহানগর উত্তরের আহ্বায়ক আমানউল্লাহ আমান।

শনিবার (২৯ জুলাই) অবস্থান কর্মসূচিতে অসুস্থ হওয়ার পর হাসপাতালে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে ফল পাঠানোর ঘটনাকে নাটক আখ্যা দিয়ে তিনি বলেছেন, আমি ঘুমে ছিলাম। ওষুধ দিয়ে ডাক্তাররা ঘুম পাড়িয়ে রেখেছিলেন। আমার কারও সঙ্গে কথা হয়নি। কিন্তু তারা কি নাটক করলো। প্রয়োজনে জীবন যাবে কিন্তু আপস করব না।

দলের সিনিয়র নেতাদের মাঠে নামার আহ্বান জানিয়ে আমান বলেন, সবাই মাঠে নামেন। পরশুদিন নেতাকর্মীরা মাঠে নেমে দেখিয়েছেন। আমরা সফল হয়েছি। শেখ হাসিনার পদত্যাগ ছাড়া কোনো বিকল্প নেই।

বিএনপির এই নেতা বলেন, আন্দোলনে গুলি করবে। জীবন যেতে পারে। কিন্তু একটা নেতাকর্মীও আপস করবে না। যারা গ্রেফতার হয়েছেন তাদের পরিবারের পাশে আমরা আছি। আন্দোলনের মাধ্যমে তাদের সবাইকে আমরা মুক্ত করবো।

বিএনপির শান্তিপূর্ণ অবস্থান কর্মসূচি বানচাল করতে গিয়ে আওয়ামী লীগ ও তাদের সরকার বানচাল হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, আপনারা এই অবস্থান কর্মসূচিতে যেভাবে রক্তাক্ত করেছেন তা মানুষ ভুলে যায়নি।

রিজভী বলেন, আজকে পুলিশ বিএনপিকে সমাবেশ করার যে শর্ত দিয়েছে, সেখানে একটি শর্তে বলা হয়েছে সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তি মঞ্চে থাকতে পারবে না এবং তার বক্তব্যও প্রচার করতে পারবে না। কাকে বুঝিয়েছে তারেক রহমানকে? যিনি এই স্বৈরাচারী সরকারের বিরুদ্ধে জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করেছে।

আজকে আওয়ামী লীগ দেউলিয়া হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেন বিএনপির এই নেতা।