ঢাকা১৯শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ১২ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি ৪ঠা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থ বানিজ্য
  2. আইন আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আবহাওয়া
  5. ইসলাম
  6. এভিয়েশন
  7. ক্যাম্পাস
  8. খেলা
  9. জব মার্কেট
  10. জাতীয়
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. দেশবাংলা
  13. বিনোদন
  14. রাজনীতি
  15. লাইফস্টাইল
বিজ্ঞাপন
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ভোর থেকেই মাঠে থাকবে আ’লীগ

জনবার্তা প্রতিনিধি
ডিসেম্বর ১০, ২০২২ ৯:০০ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

বিএনপির ঢাকা বিভাগীয় গণসমাবেশকে ঘিরে কয়েকদিন আগে থেকেই প্রস্তুতি ছিল আওয়ামী লীগের। মঙ্গলবার ছাত্রলীগের জাতীয় সম্মেলন শেষ হওয়ার পর দিন থেকেই মাঠে নামেন ক্ষমতাসীন দল ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। রাজধানীজুড়ে তাদের সতর্ক পাহারা বসানো হয়েছিল। আর গণসমাবেশে সারাদেশ থেকে বিএনপি সমর্থকদের ‘আসা ঠেকাতে’ বৃহস্পতিবার ভোর থেকে রাজধানী ঢাকার প্রবেশপথে অবস্থান নিয়েছিলেন সরকার সমর্থকরা। গতকাল শুক্রবার সেই অবস্থান অব্যাহত ছিল। সব মিলিয়ে গণসমাবেশকে ঘিরে দেশজুড়ে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠার মধ্যে আওয়ামী লীগও প্রস্তুত। আজ শনিবারও ভোর থেকেই মাঠে থাকবেন তাঁরা।

রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে কোনো রকম ছাড় দিতে রাজি নয় ক্ষমতাসীন দলটি। শুক্রবার দলীয় এক সমাবেশে আওয়ামী লীগ নেতারা এমনটাই বলেছেন। আজ আওয়ামী লীগের বড় জমায়েত থাকবে ঢাকার উপকণ্ঠ সাভারের রেডিও কলোনি মাঠে। সেখানে দুপুরে সাভার ও ধামরাই উপজেলা এবং সাভার পৌরসভা ও আশুলিয়া থানা আওয়ামী লীগের ব্যানারে সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরসহ কেন্দ্রীয় নেতারা এ সমাবেশে যোগ দেবেন।

এরই মধ্যে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা দক্ষিণের ২৪টি থানার ৭৫টি ওয়ার্ডে সতর্ক পাহারা বসিয়েছেন। এই ৭৫টি ওয়ার্ডের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে নেতাকর্মীর সতর্ক পাহারা চলছে। সংশ্নিষ্ট থানার মূল পয়েন্ট কিংবা মোড়ে থানা সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকরা অবস্থান নিয়ে পরিস্থিতি তদারকি করছেন।

এ বিষয়ে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফী সমকালকে বলেছেন, গণসমাবেশের দু’দিন আগেই বিএনপি-জামায়াতের সহিংসতায় একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ কারণে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা সতর্ক অবস্থানে রয়েছেন। এখন থেকে আমরা রাজধানীতে বিএনপির কোনো কর্মীকে ঢুকতে দেব না। সেজন্য দলীয় নেতাকর্মীকে বিশেষ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

তিনি জানান, মহানগর ও কেন্দ্রীয় নেতাদের একটি অংশ রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউর দলীয় কার্যালয়ে থাকবেন। সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা নিজ নিজ পাড়া-মহল্লায় সতর্ক পাহারায় থাকবেন।

ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের অন্তর্গত ২৬টি থানার ৫৪টি ওয়ার্ডে অনুরূপ অবস্থান নিয়েছেন দলের নেতাকর্মীরা। আজ এ শাখার ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে বিক্ষোভ প্রদর্শন করা হবে। মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম মান্নান কচি বলেন, কোনো অবস্থায়ই বিএনপিকে কোনো ছাড় দেওয়া হবে না। কোথাও কোনো সহিংসতা ও নৈরাজ্যের আভাস পাওয়া মাত্রই প্রতিরোধ করা হবে।

সরেজমিন পরিদর্শনে দেখা গেছে, এরই মধ্যে মহানগরীর উত্তর ও দক্ষিণ উভয় অংশেই আওয়ামী লীগ ও সহযোগী-ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের নেতাকর্মী-সমর্থকদের অবস্থান রয়েছে। কোথাও কোথাও লাঠিসোটা হাতেও দেখা গেছে নেতাকর্মীকে। লগি-বৈঠা হাতে মিছিল ও স্লোগান দিয়েছেন সরকার সমর্থকরা। বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউর দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে নেতাকর্মীর ভিড় আরও বেড়েছে।

নয়াপল্টন থেকে মতিঝিল এলাকার মোড়ে মোড়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরাও অবস্থান নিয়েছেন। মিছিল দেখা গেছে শাহজাহানপুর, ধানমন্ডি রাসেল স্কয়ার, কল্যাণপুর, পাইকপাড়া, কলাবাগান, ভূতের গলি, হাতিরপুলসহ অন্য এলাকায়ও। কল্যাণপুর এলাকায় আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন যুবলীগ নেতাকর্মীকে পিকআপে চড়ে বিভিন্ন স্লোগান দিতে দেখা গেছে।

এদিকে, রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ আটটি প্রবেশ পয়েন্টে পাহারা বসিয়েছেন ক্ষমতাসীন দলের ঢাকা মহানগর, থানা ও ওয়ার্ড নেতাকর্মী এবং সরকার সমর্থক ওয়ার্ড কাউন্সিলররা। এ পয়েন্টগুলো হচ্ছে সায়েদাবাদ-যাত্রাবাড়ী, উত্তরা-আজমপুর-আবদুল্লাহপুর-বিমানবন্দর, সদরঘাট-সোয়ারীঘাট-বাবুপুরা ব্রিজ, গুলিস্তান, গাবতলী-আমিনবাজার, আশুলিয়া, কমলাপুর রেলস্টেশন এবং মহাখালী। এসব পয়েন্টে আওয়ামী লীগের সঙ্গে মাঠে অবস্থান নিয়েছেন দলের সহযোগী-ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের নেতাকর্মীরাও।

এ অবস্থায় বুড়িগঙ্গা দ্বিতীয় সেতুসংলগ্ন কদমতলী এলাকায় দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে ‘আসুন বিজয় উল্লাসে মাতি’ ব্যানারে অনুষ্ঠান চলছে বৃহস্পতিবার থেকেই। এটি চলবে আজ শনিবার বিএনপির গণসমাবেশ শেষ না হওয়া পর্যন্ত। সেখানে বিশাল শামিয়ানা টানিয়ে মঞ্চ বানিয়ে অনুষ্ঠান করা হচ্ছে।

এছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ অন্যান্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ক্যাম্পাসে অবস্থান নিয়ে মিছিল-সমাবেশ করছেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টন এলাকা থেকে পুলিশের প্রতিবন্ধকতা উঠিয়ে নেওয়ার পর সেখানে মিছিল করেছে ছাত্রলীগ।